ঢাকা রাত ৪:৩৯, সোমবার, ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং, ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে যা বললেন মমতা ব্যানার্জি

ভারতের নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল-এনআরসির প্রতিবাদে এবার গণ আন্দোলনে নামছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। রবিবার, সোমবার, মঙ্গলবার ও বুধবার, টানা চারদিন কলকাতাসহ রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে প্রতিবাদ মিছিলের ডাক দিলেন তিনি।

দিঘায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বলেন, নো এনআরসি, নো ক্যাব। আইন পাস হলেও আমাদের সরকার তা কার্যকর করবে না। সকলকে বলছি, ধর্ম-বর্ণ-জাতি নির্বিশেষে সকলে গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে প্রতিবাদ করুন। সব রাজ্যে গণ আন্দোলন করুন। বাংলাতেও গণ আন্দোলন গড়ে তুলুন।

এ প্রসঙ্গে দিঘায় শুক্রবার (১৩ ডিসেম্মবর) মমতা বলেন, আগামী সোমবার আমরা মিছিল করব। আম্বেদকরের মূর্তির সামনে দুপুর ১টায় জমায়েত করব। এরপর গান্ধী মূর্তির পাদদেশ থেকে জোড়াসাঁকো ঠাকুরবাড়ি পর্যন্ত মিছিল করব। মঙ্গলবার দক্ষিণ কলকাতায় মিছিল করা হবে। সেদিন যাদবপুর ৮বি থেকে ১টায় মিছিল শুরু হবে। মিছিল যাবে গান্ধী মূর্তির পাদদেশ পর্যন্ত। বুধবারও আমরা মিছিল করব। কোথায় করব পরে জানাব। আগামী রবিবার জেলায় জেলায় সব ধর্ম-বর্ণের মানুষকে সঙ্গে নিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে মিছিল করবে তৃণমূল। ব্লকে ব্লকে মিছিল করা হবে।

ক্যাব-এনআরসি ইস্যুতে মোদি সরকারকে উদ্দেশ্য করে মমতা বলেন, ক্যাব-এনআরসি নিয়ে অনেক বুঝিয়েছি। বেড়ালের গলায় ঘণ্টা বাজিয়ে বোঝানোর চেষ্টা করেছি। কতবার বলেছি, আগুন নিয়ে খেলতে যেও না, শোনেনি। আসাম, মেঘালয়, ত্রিপুরাসহ সব রাজ্যের আলাদা আবেগ রয়েছে। গায়ের জোরে বলছে ক্যাব-এনআরসি করবে। আমরা করতে দেব না। যে বিজেপি করবে, তাকেই শুধু নাগরিকত্ব দেওয়া হবে? বাকিদের না? আসামে আগুন জ্বলছে দেখুন, কী অত্যাচার চলছে! বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক কোথায় দাঁড়িয়েছে আজ!

বিজেপিকে আক্রমণ করে মমতা আরো বলেন, বিজেপি এখন ওয়াশিং মেশিন। বিজেপিতে গেলে সাফ, না হলে জেলে। সাম্প্রদায়িকতার রং নিয়ে খেলছে বিজেপি। দেশজুড়ে অস্থিরতা চলছে। দেশের অর্থনীতি কালো মেঘে ছেয়ে গেছে। বেকারত্ব বাড়ছে, দারিদ্রতা বাড়ছে। একটা সরকারের কাজ মানুষের উন্নয়ন করা। আমরা দেনা শোধ করেও সামাজিক কর্মসূচি যাতে ভালো করে চলে, সেদিকে খেয়াল রাখি। আমরা কাজ দিয়ে তা প্রমাণ করেছি।

বিজনেস বাংলাদেশ/ বিএইচ

এ বিভাগের আরও সংবাদ
//graizoah.com/afu.php?zoneid=3354715