ঢাকা রাত ৯:১২, শনিবার, ১১ই জুলাই, ২০২০ ইং, ২৭শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

উচ্ছ্বসিত টেন্ডুলকার

কলকাতার ইডেন গার্ডেনে শুরু হয়েছে ভারতের ক্রিকেট ইতিহাসের প্রথম দিবা-রাত্রির টেস্ট। যা বাংলাদেশের টেস্ট ইতিহাসেও প্রথম। গোলাপি বলের এই ঐতিহাসিক টেস্ট দেখতে আমন্ত্রিত অতিথি হয়ে কলকাতায় এসেছেন ভারতের ক্রিকেটের জীবন্ত কিংবদন্তি শচীন রমেশ টেন্ডুলকার।

টেস্ট শুরুর আগে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, পশ্চিমবঙ্গের মূখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী, ভারতের ক্রিকেট নিয়ন্ত্রণ বোর্ডের সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলীসহ অন্যান্যদের সঙ্গে মাঠে প্রবেশ করেন এবং দুই দলের খেলোয়াড়দের সঙ্গে পরিচিত হন।

গোলাপি বলের টেস্টের সাক্ষী হতে পেরে উচ্ছ্বসিত শচীন বলেন, ‘এখানে আসতে পেরে আমি খুবই উচ্ছ্বসিত। আমি জানি ভারতের ক্রিকেট ইতিহাসে নতুন একটি পৃষ্ঠা যোগ হল আজ। কারণ, এটা আমাদের প্রথম দিবা-রাত্রির টেস্ট। সৌরভ এবং বিসিসিআইয়ের অন্যান্যদের দারুণ একটি উদ্যোগ ছিল এটা।

আমি মনে করি ভালো একটি দলগত প্রচেষ্টা ছাড়া এটা সম্ভব ছিল না। এটা এমন কিছু যা আমাদের ভারতীয় দর্শকদের জন্য সম্পূর্ণ নতুন। আমি নিশ্চিত তারা এটা উপভোগ করবে।’

ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অব বেঙ্গল (সিএবি) বিশেষ এই টেস্ট আয়োজনের পাশাপাশি উপলক্ষ্যটাকে রাঙিয়ে তুলতে আয়োজনের কমতি রাখেনি। তারা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে। আমন্ত্রণ জানিয়েছে বাংলাদেশের প্রথম টেস্টে খেলা সকল ক্রিকেটারদের ও ভারতের বিশেষ বিশেষ ক্রীড়া ব্যক্তিত্বদের। সিএবি’র এমন আয়োজনেরও প্রশংসা করেছেন শচীন, ‘এই ধরনের আয়োজনকে বিশেষ ও জাকজমকপূর্ণ করতে কলকাতা সব সময়ই বিখ্যাত। আজও তার ব্যতিক্রম ছিল না। চলুন সবকিছু উপভোগ করা যাক।’

পরে ভিভিআইপি বক্সে বসে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে খেলা উপভোগ করেন।

 

বিজনেস বাংলাদেশ/এম মিজান

এ বিভাগের আরও সংবাদ
//graizoah.com/afu.php?zoneid=3354715