ঢাকা রাত ১০:২৩, শনিবার, ৩০শে মে, ২০২০ ইং, ১৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ইউটিউবে তামিম, ফেসবুকে সাকিব

সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবাল নিজ পারফরম্যান্সের গুণে সারাবিশ্বেই ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন। কিন্তু সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে যার ফলোয়ার বা অনুসরণকারী যতবেশি তাকেই জনপ্রিয় মনে করা হয়। সেদিক থেকে দেখা যাচ্ছে ইউটিউবে এগিয়ে তামিম, ফেসবুকে সাকিব।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে সাকিবের ফলোয়ার সংখ্যা বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি (১১ মিলিয়ন)। তার চেয়ে ঢের পিছিয়ে থাকা তামিমের ফলোয়ার ২.৬ মিলিয়ন। দেশের অনেক ক্রিকেটারদের চেয়েও ফলোয়ার সংখ্যায় অনেক পিছিয়ে আছেন তিনি। তবে ইউটিউবে আবার অনেক এগিয়ে তামিম।

এদিকে চলতি মাসেই নিজেদের নামে ইউটিউব চ্যানেল খুলেছেন তামিম-সাকিব। শুরু থেকেই ইউটিউবে বেশ সক্রিয় তামিম। করোনার এই সময়ে দেশ-বিদেশের সাবেক ও বর্তমান ক্রিকেটারদের নিয়ে ফেসবুকে তামিমের লাইভ শো বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে। ফেসবুকে প্রচারিত এসব শোয়ের ভিডিও নিজের ইউটিউব চ্যানেলে পোস্ট করছেন তিনি। ফলে ঝড়ের গতিতে বেড়েছে সাবস্ক্রাইবার।

তামিমের চ্যানেলটির বয়স মাত্র দুই সপ্তাহ। তবে এরই মধ্যে তা সাবস্ক্রাইব করেছেন ৬৬ হাজার মানুষ। এই সময়ে ১১টি ভিডিও পোস্ট করেছেন দেশসেরা ওপেনার। এর মধ্যে লাইভ আড্ডার ৯টি পর্বও আছে।

তামিমের মাত্র এক সপ্তাহ পর ইউটিউব চ্যানেল খোলেন সাকিব। এখন পর্যন্ত মাত্র একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন এই অলরাউন্ডার। নিজের দ্বিতীয় কন্যা সন্তানের সঙ্গে সবাইকে পরিচয় করিয়ে দিয়েছেন ইউটিউব চ্যানেলের সেই ভিডিওর মাধ্যমে। এখন পর্যন্ত ১৫ হাজারের কিছু বেশি মানুষ সাকিবের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করেছে।

ক্রিকেট মাঠে দীর্ঘদিন ধরেই নানা রেকর্ড ভাঙ্গা গড়ার প্রতিযোগিতায় মেতে আছেন দুই সতীর্থ সাকিব ও তামিম। তবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের দুই ক্ষেত্রে দুজন আলাদা আলাদাভাবেই শীর্ষে রয়েছেন।

বিজনেস বাংলাদেশ/ এ আর

এ বিভাগের আরও সংবাদ