ঢাকা দুপুর ২:০০, সোমবার, ২৫শে মে, ২০২০ ইং, ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ভালুকায় অসহায় পরিবারের মাঝে ত্রাণ পৌঁছে দিচ্ছেন স্বেচ্ছাসেবীরা

নোভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে দেশের সব ধরনের কল-কারখানা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যাওয়ায় দেশের বিপুল সংখ্যক মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে। ভালুকায় সেসব কর্মহীন অসহায় নিম্নআয়ের পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ভালুকা ক্লাব। গত কয়েকদিনে কর্মহীণ হয়ে পড়া নিম্নমধ্যবিত্ত ও মধ্যবিত্ত প্রায় ১০০ পরিবারের মাঝে এক সপ্তাহের খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছেন তারা। ভালুকা ক্লাবের এ উদ্যোগের সহযোগী হিসেবে কাজ করছে ব্লাড ডোনার্স সোসাইটি ভালুকা।

 

ভালুকা ক্লাবের ব্যতিক্রমী এ আয়োজনের প্রশংসা করে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে উৎসাহ দিচ্ছেন নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ। এই কার্যক্রমে করোনাভাইরাসের বিষয়ে সরকারি নির্দেশনা মেনে ও ত্রাণগ্রহীতাদের সুরক্ষা এবং জৈব নিরাপত্তার বিষয়টি বিবেচনায় রেখে অসহায় পরিবারের বাড়িতে এসব ত্রাণসামগ্রী পৌঁছে দেয়া হচ্ছে। কোথাও জনসমাগম না করে এসব অসহায় স্বল্পআয়ের মানুষের বাড়িতে গিয়ে ভালুকা ক্লাবের স্বেচ্ছাসেবীরা এই ত্রাণ সরবরাহ করছে।

প্রথম পর্যায়ে ১০০টি অসহায় পরিবারকে পাঁচ কেজি চাল, এক কেজি ডাল, দুই কেজি আলু, এক কেজি পেঁয়াজ, একলিটার সয়াবিন তেল, এক কেজি লবণ, একটি সাবান দেয়া হচ্ছে। কোনো ধরনের জনসমাগম না করে রাতের আঁধারে অসহায় হয়ে পড়া মানুষের বাড়ি পৌঁছে দিচ্ছেন স্বেচ্ছাসেবীরা।

এ বিষয়ে ভালুকা ক্লাবের সভাপতি সুমন খান বলেন, মহান আল্লাহর রহমতে ভালুকার বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের সহযোগিতায় আমরা প্রথম ধাপে ১০০টি পরিবারের কাছে এক সপ্তাহের খাদ্যসামগ্রী সহায়তা পৌঁছে দিতে সক্ষম হয়েছি।

তিনি বলেন, আমাদের দ্বিতীয় ধাপে আরো ১০০ পরিবারের কাছে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেয়ার প্রস্তুতি চলছে। দেশের করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার আগ মুহূর্ত পর্যন্ত আমাদের এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। আমি ভালুকা ক্লাবের পক্ষ থেকে যেসব ব্যাক্তিরা সহযোগিতার মাধ্যমে আমাদের এ কার্যক্রম পরিচালনা করতে সহায়তা করেছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই।

বিজনেস বাংলাদেশ/ ইমরান

এ বিভাগের আরও সংবাদ