আজ বুধবার | ১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ইং
| ২৮ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৫ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী | সময় : সন্ধ্যা ৬:৫০

মেনু

বিসিবির অনেকেই জানতেন গ্রেড টু টিয়ারের কারনে মাশরাফি ভাল খেলবেন না

বিসিবির অনেকেই জানতেন গ্রেড টু টিয়ারের কারনে মাশরাফি ভাল খেলবেন না

স্পোর্টস ডেস্ক
বৃহস্পতিবার, ১১ জুলাই ২০১৯
১১:২৯ এএম
102 বার

যে মাশরাফির হাত ধরে হোঁচট খেয়ে পড়ে থাকা বাংলাদেশ ধীরে ধীরে হাটতে শিখে এক সময় মাথা তুলে দাঁড়িয়েছে, এবার বিশ্বকাপে ইনজুরির কারণে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে না পারতেই সেই মাশরাফির কী নিরদারুন সমালোচনা! যারা এই সমালোচনা করছেন, আহত মাশরাফির দিকে বাঁকা চোখে তাকাচ্ছেন, তির্যক বাক্য কথা বলছেন- তারা কেউ খুঁটিয়ে দেখছেন না, আজকের বাংলাদেশ ক্রিকেট দল এতটা এগিয়ে যাওয়ার পথে মাশরাফির দক্ষ ও যোগ্য নেতৃত্ব কতটা ভূমিকা রেখেছে।

কিন্তু তারা খুঁটিয়ে দেখছেন না, মাশরাফির বিকল্প কেউ ছিল না। রুবেল হোসেন দুটি ম্যাচ খেলেছেন। ওভার পিছু প্রায় ৮ রান করে দিয়েছেন।

এদিকে অনেকেই হয়তো জানেন না মাশরাফির আসলে খুব বেশি কিছু করারও ছিল না। মূলত বিশ্বকাপের আগেই তার লড়াই শুরু হয় ইনজুরির সঙ্গে। আয়ারল্যান্ডে তিন জাতি টুর্নামন্টের ফাইনালে স্মরণীয় জয়ের ম্যাচে হ্যামস্ট্রিংয়ে টান পড়ে তার। সেটা কমেনি। বরং দিনকে দিন বেড়েছে। মেডিকেল শাস্ত্রে ইনজুরিটা বলা হয়েছে ‘গ্রেড টু টিয়ার।’ এ ইনজুরি নিয়ে বিশ্বকাপ খেলা যায়না। অন্তত তিন থেকে চার সপ্তাহ বিশ্রাম হলো এ ইনজুরির প্রথম চিকিৎসা।

কিন্তু মাশরাফি একদিন বিশ্রামও পাননি। বিশ্রাম নেবার ফুরসতও ছিল না। মাশরাফি তাই নিজের সেরাটি দিতেও পারেনি।

খোদ বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপনের মুখে থেকে বেরোল এই কথা। ১০ জুলাই বুধবার লন্ডনে শুরু হওয়া পার্লামেন্টরি ওয়ার্ল্ডকাপ ক্রিকেট ২০১৯ ‘ এর উদ্বোধনী দিন বাংলাদেশ সংসদীয় দলের খেলা দেখতে গিয়ে  প্রচার মাধ্যমের সঙ্গে আলাপে বিসিবি সভাপতি বললেন, তার এবং বোর্ডের অনেকের আগেই জানা ছিল, মাশরাফিকে তার হ্যামস্ট্রিং ইনজুরি ভোগাবে। তার পক্ষে সেরাটা দেয়া সম্ভব হবে না।

নাজমুল হাসান পাপন বলে ওঠেন, মাশরাফি বিশ্বকাপে ভালো করতে পারেনি। কারণ আমরা কিন্তু আগেই জানতাম সে ভালো করতে পারবেনা। না পারারই কথা। এই ধরনের কন্ডিশন ও পিচে সে ভাল করবে এটা আমরা আশাও করিনি। সে ইনুজুরিতে ছিল। আয়ারল্যান্ডে ফাইনাল ম্যাচ থেকেই তার সঙ্গী গ্রেড টু টিয়ার।’

এদিকে নাজমুল হাসান পাপন স্বীকার করেছেন, মাশরাফিকে ইনজুরির কারণে শেষ দুই ম্যাচ না খেলার কথা ভাবছিলেন। তিনি বলেন, ‘ মাশরাফির সঙ্গে দু-একবার কথা হয়েছিল যে ও বসে পড়বে। ও নিজেও ঠিক করেছিল খেলবে না। কিন্তু ও লড়াকু। তারপরে তার মনে হয়েছে আমি সারাজীবন দেশের জন্য ফাইট করলাম এখন শেষ দুই ম্যাচে বসে পড়ব? আমি তো ইনজুরি নিয়েই খেলি।’

বিসিবি প্রধানের শেষ লাইনে পরিষ্কার, যে যাই ভাবুক আর মনে করুক, যত সমালোচনা-বাকা কথাই হোক না কেন- মাশরাফির ইনজুরি নিয়ে খেলাট অন্তত বোর্ড বাঁকা চোখে দেখেনি। আর দেখলে নাজমুল হাসান পাপন একথা বলতেন না, ‘এটা তো মানুষ অনেকে অনেক রকম ভাবে। তবে মাশরাফির এই ধরনের মানসিকতা আসলে সবার দরকার।’

আর তিনি তথা বোর্ড তো পারফরমার মাশরাফির চেয়ে অধিনায়ক মাশরাফিকেই বেশি চেয়েছেন। তারও দলিল বোর্ড প্রধানের এই মন্তব্য, ‘মাশরাফি খেলোয়াড় হিসেবে হিসেবে নেই। কিন্তু যদি অধিনায়ক বলেন, তাহলে ওর মতো অধনিায়ক আমরা কোথাও পাব না।

 

বিবি/এমএ

দিন শেষে দক্ষিণ আফ্রিকার লিড
০১ অক্টোবর ২০১৭ 208840 বার

মুস্তাফিজে হাসল বাংলাদেশ
০১ অক্টোবর ২০১৭ 208709 বার