আজ রবিবার | ২৫ আগস্ট, ২০১৯ ইং
| ১০ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২৩ জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী | সময় : বিকাল ৪:০৪

মেনু

হেরেও ইতিবাচকতা দেখছেন সরফরাজ আহমেদ

হেরেও ইতিবাচকতা দেখছেন সরফরাজ আহমেদ

স্পোর্টস ডেস্ক
বুধবার, ১৫ মে ২০১৯
১১:৩৫ পূর্বাহ্ণ
35 বার

ইংল্যান্ডের মাটিতে ২০১৭ সালের আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফি জেতার পর থেকে খুব একটা সুবিধাজনক অবস্থায় নেই পাকিস্তান ক্রিকেট। গতবছর খেলা ১৮টি ওয়ানডের মধ্যে তারা জিততে পেরেছিল কেবল ৮টিতে। ব্যর্থতার এ ধারা চলমান রয়েছে এ বছরেও।

জানুয়ারির ১৯ তারিখ দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ৮ উইকেটের বড় জয়ে বছরটা শুরু করেছিল পাকিস্তান। সে সিরিজেরই চতুর্থ ওয়ানডেতেও জিতেছিল তারা। কিন্তু এরপর থেকে পরবর্তী চার মাসে আর জয়ের দেখা পায়নি সরফরাজ আহমেদের দল।

মঙ্গলবার রাতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৬ উইকেটের পরাজয়টি ছিলো তাদের টানা অষ্টম হার। এর মধ্যে রয়েছে নিজেদের ‘সেকেন্ড হোম’ খ্যাত আরব আমিরাতে ৫-০তে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার লজ্জ্বা। সবমিলিয়ে সবশেষ ১১ ম্যাচে মাত্র ১টিতে জিতেছে পাকিস্তান।

আসন্ন বিশ্বকাপের আগে দিয়ে দলের এমন পারফরম্যান্স ভাবাচ্ছে পাকিস্তান অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদকেও। যথাযথ প্রস্তুতি নিতে ইংলিশদের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ খেলতে আসার সিদ্ধান্ত বুমেরাং হয়ে ফিরে আসছে তাদের দিকে।

তবে এর মধ্যেও ইতিবাচকতা খুঁজছেন পাকিস্তানি অধিনায়ক। ইংলিশদের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে বোলাররা ৩৭৩ রান দিলেও, মোক্ষম জবাব দিচ্ছিলো পাকিস্তানি ব্যাটসম্যানরা। শেষপর্যন্ত থামতে হয়েছিল ৩৬১ রান করে।

আর মঙ্গলবার সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডেতে আগে ব্যাট করে ৩৫৮ রানের বড় সংগ্রহ দাঁড় করিয়েও তারা জিততে পারেনি বোলাররা যথাযথ সাপোর্ট দিতে পারেনি বলে। দুই ম্যাচেই দুর্দান্ত ব্যাট করেছেন আসিফ আলি। এছাড়া রানের দেখা পেয়েছেন দুই ওপেনার ফাখর জামান এবং ইমাম উল হক।

অধিনায়ক সরফরাজের মতে, তার দলের জন্য এগুলোকে ইতিবাচক দিক হিসেবেই মানছেন। তাই তো মঙ্গলবার ম্যাচ শেষে পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ‘অধিনায়ক হিসেবে বলবো, ৩৬০ রানের লক্ষ্য তাড়া করে প্রতিপক্ষকে জিততে দেখা সুখকর অভিজ্ঞতা নয়। তবে এর মধ্যেও কিছু ইতিবাচকতা ছিলো। বিশ্বকাপের আগে দিয়ে দুই ওপেনার দারুণ ছন্দে রয়েছে। আর আসিফ আলি, সে তো দুর্দান্ত। আমাদের জন্য ভালো দিক।’

 

বিবি/এমএ

দিন শেষে দক্ষিণ আফ্রিকার লিড
০১ অক্টোবর ২০১৭ 185104 বার

মুস্তাফিজে হাসল বাংলাদেশ
০১ অক্টোবর ২০১৭ 184983 বার