আজ শনিবার | ২৩ নভেম্বর, ২০১৯ ইং
| ৮ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২৪ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী | সময় : রাত ৩:১৪

মেনু

সাকিববিহীন টাইগারদের কাছে হারলো ভারত

সাকিববিহীন টাইগারদের কাছে হারলো ভারত

ইমরান মাসুদ
রবিবার, ০৩ নভেম্বর ২০১৯
১১:১৩ পিএম
217 বার

টি-টোয়েন্টিতে ভারতের বিপক্ষে প্রথমবারের মতো জিতল বাংলাদেশ। এর আগে দুই দলের আট দেখায় সবগুলোই জিতেছিল ভারত।

শিভাব দুবেকে ডিপ মিড উইকেটের ওপর দিয়ে ছক্কা হাঁকালেন মাহমুদউল্লাহ। এই ছক্কায় নিশ্চিত হলো বাংলাদেশের জয়। ভারতের দেওয়া ১৪৮ রানের লক্ষ্য বাংলাদেশ পেরিয়ে যায় ৩ বল বাকি থাকতে।

৪৩ বলে ৬০ রানে অপরাজিত ছিলেন মুশফিকুর রহিম। ৭ বলে ১৫ রানে অপরাজিত ছিলেন মাহমুদউল্লাহ। অভিষিক্ত নাঈম শেখ ২৬ ও সৌম্য সরকার করেন ৩৯ রান।

শেষের আগের ওভারে খলিল আহমেদ টানা চারটি চার হাঁকিয়েছেন মুশফিকুর রহিম। এর মধ্যে দ্বিতীয় চারে তিনি ফিফটি পূর্ণ করেন ৪১ বলে। শেষ ওভারে বাংলাদেশের চাই ৪ রান।

সৌম্য সরকারকে ফিরিয়ে ৬০ রানের তৃতীয় উইকেট জুটি ভেঙেছেন খলিল আহমেদ। বাঁহাতি পেসার বলটা দিয়েছিলেন স্লোয়ার। পয়েন্টে খেলতে চেয়েছিলেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। কিন্তু লাইন মিস করে হয়ে যান বোল্ড।

৩৫ বলে এক চার ও ২ ছক্কায় সৌম্য করেন ৩৯ রান। ১৭ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১১৪ রান। ৩ ওভার থেকে করতে হবে আরও ৩৫ রান। মুশফিকুর রহিম ৩৭ রানে ব্যাট করছেন। তার সঙ্গী মাহমুদউল্লাহ।

তৃতীয় উইকেট জুটিতে পঞ্চাশ রানের জুটি গড়েছেন মুশফিকুর রহিম ও সৌম্য সরকার। ৪৮ বলে ছুঁয়েছে জুটির পঞ্চাশ। তাদের ব্যাটে জয়ের স্বপ্ন দেখছে বাংলাদেশ।

১৬ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ২ উইকেটে ১০৫ রান। সৌম্য ৩৭ ও মুশফিক ৩০ রানে ব্যাট করছেন। শেষ ৪ ওভার থেকে বাংলাদেশকে করতে হবে ৪৪ রান, হাতে ৮ উইকেট।

প্রথমবারের মতো আক্রমণে এসেই মোহাম্মদ নাঈম শেখকে ফিরিয়েছেন যুজবেন্দ্র চাহাল।

লেগ স্পিনারের লেংথ বল ছক্কায় উড়াতে চেয়েছিলেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। কিন্তু ঠিকমতো ব্যাটে লাগেনি। লং অনে ক্যাচ নেন শিখর ধাওয়ান।

২৮ বলে ২ চার ও এক ছক্কায় অভিষিক্ত নাঈম করেন ২৬ রান। তার বিদায়ে ভাঙে ৪৬ রানের জুটি। তখন ৭.৫ ওভারে বাংলাদেশের সংগ্রহ ২ উইকেটে ৫৪ রান। সৌম্য সরকার ১৯ রানে ব্যাট করছেন। তার সঙ্গী হয়েছেন মুশফিকুর রহিম।

ইনিংসের প্রথম বলে দুই রান, পরের বলে চার। শুরুটা দারুণ করেছিলেন লিটন দাস। কিন্তু ডানহাতি ওপেনার আউট হয়েছেন বাজে এক শট খেলে।

ডানহাতি পেসার দীপক চাহারের অফ স্টাম্পের বাইরের বল জায়গায় দাঁড়িয়ে খেলেছিলেন লিটন। পয়েন্টের সহজ ক্যাচ নেন লোকেশ রাহুল।

লিটন ৪ বলে একটি চারে করেন ৭ রান। তখন পাঁচ বলে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১ উইকেটে ৮ রান। অভিষিক্ত মোহাম্মদ নাঈম শেখ ১ রানে ব্যাট করছেন। তিন নম্বরে নেমেছেন সৌম্য সরকার।

ভারতকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়ে লক্ষ্য নাগালে রাখল বাংলাদেশ। নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ভারতকে বড় সংগ্রহ পেতে দেননি বোলাররা। আগে ব্যাটিং করে ৬ উইকেটে ১৪৮ রান তোলে ভারত। জয়ের জন্য বাংলাদেশকে করতে হবে ১৪৯ রান।

শফিউল ইসলাম নিজের শেষ ওভারে দিলেন ১৪ রান। আল-আমিন পরের ওভারে খরচ করলেন ১৬। শেষ দুই ওভারে ৩০ রান তুলে বাংলাদেশকে চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য দিয়েছে ভারত।

উইকেট থেকে সরে গিয়ে লং অফ দিয়ে শফিউলকে উড়াতে চেয়েছিলেন রিশাভ পন্ত। সীমানায় নাঈমকে টপকাতে পারেননি বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। ২৬ বলে ২৭ রান করে সাজঘরে ফেরেন পন্ত। শফিউল পেলেন তার দ্বিতীয় উইকেট। পন্তের আউটের সময় ভারতের রান ৬ উইকেটে ১২০।

অভিষেক দুবেকে বড় ধাক্কা দিলেন আফিফ। দুর্দান্ত এক ক্যাচে আফিফ ফেরালেন ভারতের ব্যাটসম্যানকে। ডানহাতি স্পিনারের শর্ট বলে ফিরতি ক্যাচ দেন আফিফ। জায়গা থেকে সরে খানিকটা লাফিয়ে এক হাতে বল তালুবন্দি করেন আফিফ। ৪ বলে ১ রান করে দুবে। তার আউটের সময় ভারতের রান ৫ উইকেটে ১০২।

আফিফের অফ স্টাম্পের বাইরের বল কাভার ড্রাইভে চার হাঁকালেন পন্ত। ভারতের রান ৯৭ থেকে পৌঁছে গেল ১০৩-এ। ১৫.৪ ওভারে দলীয় একশ রান পায় ভারত।

দুই রান নিতে গিয়ে রান আউট হয়ে সাজঘরে ফিরলেন শিখর ধাওয়ান। ইনিংসের শুরু থেকেই রানিং বিটিউন দ্য উইকেটে সমস্যা হচ্ছিল ধাওয়ানের। ভুল বোঝাবুঝি হচ্ছিল শুরু থেকেই। এবার রিশাভ পন্তের সঙ্গে দুই রান নিতে গিয়ে ব্যক্তিগত ৪১ রানে সাজঘরে ফেরেন ধাওয়ান। মাহমুদউল্লাহর থ্রোতে উইকেট ভাঙেন মুশফিক। তার ফেরার সময় ভারতের রান ৪ উইকেটে ৯৫।

লেগ স্পিনার আমিনুল ইসলাম বিপ্লবকে পরপর দুই দুই ছক্কা হাঁকিয়েছিলেন শ্রেয়াশ আইয়ার। ডানহাতি ব্যাটসম্যানকে ফেরানোর উত্তর জানা ছিল বিপ্লবের। নিজের তৃতীয় ওভারে প্রতিশোধ নেন বিপ্লব। হাওয়ায় ভাসানো বল তুলে মারতে গিয়ে লং অফে ক্যাচ দেন ১৩ বলে ২২ রান করা আইয়ার। সীমানায় দারুণ ক্যাচ ধরেন অভিষিক্ত মোহাম্মদ নাঈম শেখ। আইয়ারের আউটের সময় ভারতের রান ৩ উইকেটে ৭০।

শুরুর ধাক্কা সামলে দ্রুত রান তুলছে ভারত। ১০ ওভার শেষে তাদের রান ২ উইকেটে ৬৯। ওভারপ্রতি ৬.৯০ গড়ে রান তুলছে ভারত। উইকেটে থিতু হওয়া ধাওয়ান ২৩ রানে এবং শ্রেয়াশ আইয়ার ২২ রানে ব্যাটিং করছেন।

সৌম্যর লেগ স্টাম্পের ওপরের বল আলতো ছোঁয়ায় বাউন্ডারিতে পাঠিয়ে দলীয় ফিফটি তুলে নেন শিখর ধাওয়ান। অষ্টম ওভারের চতুর্থ বলে দলীয় পঞ্চাশ রান পায় ভারত।

বলা হচ্ছিল মাহমুদউল্লাহর তরুপের তাস হবেন আমিনুল ইসলাম বিপ্লব। প্রথম ওভারে বোলিংয়ে এসে কথার প্রমাণ রাখলেন লেগ স্পিনার। লোকেশ রাহুল কী করতে চাইলেন, তা বোঝা গেল না। বিপ্লবের ঘূর্ণিতে শট খেলতে চেয়েও খেললেন না। কাভারে মাহমুদউল্লাহ সহজ ক্যাচ নিয়ে বিপ্লবকে উইকেটের স্বাদ দিলেন। ১৭ বলে ১৫ রান করে সাজঘরে ফিরলেন রাহুল। তার আউটের সময় ভারতের রান ২ উইকেটে ৩৬।

রোহিত শর্মা প্রথম ওভারে আউট হওয়ার পর সতর্ক ব্যাটিং করছে ভারত। বাংলাদেশের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে দ্রুত রান তুলতে পারছেন না ক্রিজে থাকা লোকেশ রাহুল ও শেখর ধাওয়ান। পাওয়ার প্লে’তে ভারতের রান ১ উইকেটে ৩৫।

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রানের রেকর্ড নিজের করে নিয়েছেন রোহিত শর্মা। বাংলাদেশের বিপক্ষে দিল্লিতে ৯ রানে আউট হন রোহিত। এ ইনিংস খেলার পথে বিরাটকে টপকে নতুন রেকর্ড গড়েছেন রোহিত। টি-টোয়েন্টিতে রোহিতের রান ৯৯ ম্যাচে ২৪৫২। বিরাট ৭২ ম্যাচে করেছেন ২৪৫০ রান। এ তালিকায় তিনে রয়েছেন মার্টিন গাপটিল।
শফিউলের প্রথম বল লেগ স্ট্যাম্পের ওপরে। আলতো ছোঁয়ায় রোহিত শর্মা বল পাঠান বাউন্ডারিতে। ওভারের পঞ্চম বলে রোহিতের আরেকটি বাউন্ডারি। ওই বাউন্ডারিতে টি-টোয়েন্টিতে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রানের কীর্তি গড়েন রোহিত। কিন্তু ওভারের শেষ বলে প্রতিশোধ নেন শফিউল। দারুণ ইনসুইং ডেলিভারীতে এলবিডব্লিউ ভারতের অধিনায়ক। রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারেননি রোহিত। ওভারে ১০ রান দিলেও প্রথম ওভারে বাংলাদেশকে সাফল্য দিয়েছেন শফিউল। রোহিত আউট হওয়ার সময় ভারতের রান ১ উইকেটে ১০।

বাংলাদেশ একাদশ

লিটন কুমার দাস, সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ নাঈম শেখ, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, আফিফ হোসেন, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব, শফিউল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান ও আল-আমিন হোসেন।

ভারত একাদশ

রোহিত শর্মা, শিখর ধাওয়ান, লোকেশ রাহুল, শ্রেয়াস আইয়ার, রিষভ পন্ত, ক্রনাল পান্ডিয়া, শিভাম দুবে, ওয়াসিংটন সুন্দর, দীপক চাহার, যুজবেন্দ্র চাহাল ও খলিল আহমেদ।

 

ভারতের বিপক্ষে অভিষেক হতে যাচ্ছে নাঈম শেখের। বাঁহাতি ওপেনার ২০১৯ ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান করেছিলেন। ১৬ ম্যাচে করেছিলেন ৮০৭ রান। সম্প্রতি শ্রীলঙ্কা সফরে বাংলাদেশ ‘এ’ দলের হয়ে দুটি হাফ সেঞ্চুরিও হাঁকিয়েছিলেন নাঈম।

 

অভিষেকের অপেক্ষায় ভারতের ব্যাটসম্যান শিভাব দুবে। বাঁহাতি ব্যাটসম্যানকে বলা হচ্ছে ভারতীয় ক্রিকেটের দ্বিতীয় যুবরাজ। দেখার বিষয় অভিষেক কতটা রাঙাতে পারেন এ হার্ডহিটার।

এরই মধ্যে টস সম্পন্ন হয়েছে। টস জিতে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। দিল্লির অরুণ জেটলি স্টেডিয়ামে স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাতটায় শুরু হবে ম্যাচ।

ভারত সফরে যাওয়ার আগের দিন রীতিমতো বড়সড় ধাক্কা হজম করে বাংলাদেশ। নিয়মিত অধিনায়ক সাকিব আল হাসানকে এক বছর ক্রিকেটে নিষিদ্ধ করে আইসিসি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সাকিবকে এক বছর পাবে না বাংলাদেশ। ২০০৬ সালে ক্যারিয়ার শুরু করা সাকিব এতটা দীর্ঘ সময়ের জন্য বাইরে থাকেননি। সাকিববিহীন বাংলাদেশের পথচলা শুরু হচ্ছে আজ থেকে।

ব্যক্তিগত কারণে তামিম ইকবাল নেই ভারত সফরে। শুরুতে জানা গিয়েছিল তামিম থাকবেন না টি-টোয়েন্টি সিরিজে। কিন্তু তামিম নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন পুরো সফর থেকে।

ভারতের মাটিতে পূর্ণাঙ্গ দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হলো। এবার ভারত সফরে তিনটি টি-টোয়েন্টি ও দুটি টেস্ট খেলবে বাংলাদেশ। সফর শুরু হচ্ছে আজকের টি-টোয়েন্টি দিয়ে। এরপর রাজকোট ও নাগপুরে সিরিজের দ্বিতীয় ও তৃতীয় টি-টোয়েন্টি হবে। রঙিন পোশাকের পর সাদা পোশাকে দুটি টেস্ট খেলবে দুই দল। প্রথমটি ইন্দোরে, পরেরটি ইডেনে। ইডেনে দুই দলের টেস্ট ম্যাচটি হবে দিবারাত্রির।

রবিবারেই থেমে যাবে বৃষ্টি
২১ অক্টোবর ২০১৭ 730386 বার

সুষমা স্বরাজ ঢাকায়
২২ অক্টোবর ২০১৭ 728413 বার

কাঁদলেন মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ
০৪ অক্টোবর ২০১৭ 597302 বার