আজ সোমবার | ১৮ নভেম্বর, ২০১৯ ইং
| ৩ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২০ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী | সময় : সকাল ৬:৪৫

মেনু

শপথের মধ্য দিয়ে শেষ হলো বুয়েট শিক্ষার্থীদের আন্দোলন

ছবি: সংগৃহীত।

শপথের মধ্য দিয়ে শেষ হলো বুয়েট শিক্ষার্থীদের আন্দোলন

ঢাবি প্রতিনিধি
বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯
৩:৫৭ পিএম
72 বার

গণশপথের মধ্য দিয়ে সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়েছে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) শিক্ষার্থীদের আন্দোলন।

বুধবার দুপুরে বুয়েট কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে গণশপথের মাধ্যমে মাঠ পর্যায়ের আন্দোলনের সমাপ্ত ঘোষণা করেন তারা। সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ রুখে দিতে গণশপথে অংশ নিয়েছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

ভারপ্রাপ্ত ছাত্র কল্যাণ পরিচালক আবদুল বাসিতের সঞ্চালনায় এ অনুষ্ঠান শুরু হয়। পরবর্তীতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের পক্ষে একজন শপথ বাক্য পাঠ করান।

এতে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ভিসি অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম, ছাত্র কল্যাণ উপদেষ্টা মিজানুর রহমান, বুয়েটের আটটি হলের প্রভোস্ট ও শিক্ষার্থীরা।

গতকাল (মঙ্গলবার) সন্ধ্যায় বুয়েট শহীদ মিনারের পাদদেশে সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের মুখপাত্র মাহমুদুর রহমান সায়েম বলেন, আবরারের লাশকে কেন্দ্র করে অনেক স্বার্থান্বেষী মহল তাদের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে চাচ্ছে।

যাতে এই নিয়ে কেউ জলঘোলা না করতে পারে, তাই গণশপথের মাধ্যমে মাঠ পর্যায়ের আন্দোলন স্থগিত করা হবে।

ওই স্বার্থান্বেষী মহলের সাথে আমাদের কোনো প্রকার যোগসাজেশ নেই বলে জানান আন্দোলনরত বুয়েট শিক্ষার্থীরা।

তবে চার্জশিট দাখিলের পর অভিযুক্তদের স্থায়ী বহিষ্কারের আগে কোন একাডেমিক কার্যক্রমে শিক্ষার্থীরা অংশ নেবেন না তারা। পরীক্ষাসহ সব একাডেমিক কার্যক্রম বর্জনের মাধ্যমে আন্দোলন চলবে বলে জানিয়েছেন বুয়েটে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরো বলেন, খুব স্পষ্টভাবে আমরা বলতে চাই, মাঠ পর্যায়ে যে আন্দোলন, তার আপাতত ইতি টানলেও আমরা অবশ্যই সার্বক্ষণিকভাবে পর্যবেক্ষণ করতে থাকব, আমাদের দাবিদাওয়াগুলোর যথাযথ বাস্তবায়ন প্রশাসন নিশ্চিত করছে কি না৷ এবং ফাইনালি, আইন প্রয়োগকারী সংস্থা (আবরার হত্যা মামলার) চার্জশিট দাখিলের পর সেটার ভিত্তিতে অপরাধীদের অ্যাকাডেমিকভাবে স্থায়ী বহিষ্কার হওয়ার আগ পর্যন্ত সাধারণ শিক্ষার্থীরা কোনো রকম অ্যাকাডেমিক কার্যক্রমে অংশ নেবে না৷

এর আগে বুয়েটের আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত ছাত্র কল্যাণ উপদেষ্টা আবদুল বাসিতের সঙ্গে এ নিয়ে সংলাপে বসেন।

বুয়েটের তড়িৎ কৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আবরার ফাহাদকে ৬ অক্টোবর রাতে শেরেবাংলা হলের ২০১১ নাম্বার কক্ষে ডেকে নিয়ে কয়েক ঘণ্টা ধরে নির্যাতন চালিয়ে হত্যা করা হয়৷

বুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকসহ একদল নেতা-কর্মী শিবির সন্দেহে আবরারকে পিটিয়ে হত্যা করেছে বলে ছাত্রলীগের তদন্তেও উঠে আসে৷ আসামিদের জবানবন্দির বক্তব্যকে উদ্ধৃত করে পুলিশও একই কথা বলছে ৷

আবরারকে হত্যার ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে, এর মধ্যে এজাহারভুক্ত ১৫ জন ৷

আবরারের হত্যাকাণ্ডের তদন্ত শেষে আগামী মাসে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হতে পারে বলে এর মধ্যে ইঙ্গিত দিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার মো. মনিরুল ইসলাম।

বিজনেস বাংলাদেশ/এম মিজান

রবিবারেই থেমে যাবে বৃষ্টি
২১ অক্টোবর ২০১৭ 718054 বার

সুষমা স্বরাজ ঢাকায়
২২ অক্টোবর ২০১৭ 716101 বার

কাঁদলেন মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ
০৪ অক্টোবর ২০১৭ 587972 বার