আজ শনিবার | ৭ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং
| ২২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ৯ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী | সময় : রাত ১০:৫৬

মেনু

রিটার্ন জমা দেওয়ার শেষ দিন আজ

রিটার্ন জমা দেওয়ার শেষ দিন আজ

নিজস্ব প্রতিনিধি
রবিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০১৯
১২:৪১ পিএম
36 বার

ব্যক্তি শ্রেণির আয়কর বিবরণী বা রিটার্ন জমা দেওয়ার শেষ দিন আজ। শুক্র ও শনিবার সরকারি ছুটির দিন থাকায় করদাতাদের সুবিধার্থে ১ ডিসেম্বর রিটার্ন দাখিলের সুযোগ দিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

নির্ধারিত সময়ের পরে আয়কর রিটার্ন জমা দিয়ে দুই শতাংশ হারে বিলম্ব সুদ গুণতে হবে করদাতাদের। এজন্য নির্ধারিত সময়ের মধ্যে রিটার্ন জমা দিতে অনুরোধ করেছে এনবিআর।

তবে বিলম্ব সুদ পরিশোধ করে যৌক্তিক কারণ দেখিয়ে যে কোনো করদাতা ইচ্ছে করলে রিটার্ন জমা দেওয়ার সময় বাড়িয়ে নিতে পারবেন। এক্ষেত্রে যথাযথ নিয়ম মেনে আবেদন করতে হবে। সংশ্লিষ্ট উপ-কর কমিশনার বরাবর আবেদন করা হলে তিনি আয়করদাতাকে দুই মাস পর্যন্ত সময় বাড়িয়ে দিতে পারেন।

এ বিষয়ে এনবিআর সদস্য (কর) কালিপদ হালদার বলেন, নিয়মিত রিটার্ন জমার শেষ দুই দিন সাপ্তাহিক ছুটি থাকায় আইনসিদ্ধ অনুযায়ী করদাতাদের পরবর্তী সপ্তাহের প্রথম কর্মদিবসে এ সুযোগ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া যুক্তি সংগত কারণ দেখিয়ে এই সময়ের পরেও কর দাতা রিটার্ন দাখিল করতে পারবেন। এক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট উপ-কর কমিশনারের অনুমতি নিয়ে পরবর্তীতে রিটার্ন জমা দেয়ার সুযোগ থাকবে।

কর অঞ্চল-১৪ এ সময়ে আবেদন নিয়ে রোববার সকালে এসেছেন ইঞ্জিনিয়ার নজরুল ইসলাম। পেশাগত কারণে দীর্ঘদিন বিদেশে থাকায় চলতি বছরের আয়কর রিটার্ন জমা দিতে পারেননি। তাই রিটার্ন জমা দিতে সময়ের আবেদন নিয়ে এসেছেন বলে জানিয়েছেন।

এদিকে ওই কর অঞ্চলে সকাল থেকেই আসতে শুরু করেছে করদাতারা। কর অঞ্চল সূত্রে জানা গেছে গতকাল ৩০ নভেম্বর ব্যক্তি শ্রেণির ৯০ জন করদাতা রিটার্ন দাখিল করেছেন।

‘কর প্রদানে স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ, নিশ্চিত হোক রূপকল্প বাস্তবায়ন’ প্রতিপাদ্যে ৩০ নভেম্বর ১২তম আয়কর দিবস উদযাপন করে এনবিআর। ব্যানার, ফেস্টুন, স্টিকার, ঢাক-ঢোলসহ বাদ্যযন্ত্র এবং বিভিন্ন সরঞ্জামসহ র‍্যালি বের করে প্রতিষ্ঠানটি।

আয়কর দিবসে এনবিআর চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া করদাতাদের স্বতঃস্ফূর্তভাবে কর প্রদানের আহ্বান জানিয়ে বলেন, বর্তমানে দেশে ১৬ কোটির বেশি মানুষ থাকলেও কর দেন মাত্র ১ শতাংশ।

এটি গৌরবের বিষয় নয়। এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশেই সবচেয়ে কম সংখ্যক মানুষ কর দেন। স্থিতিশীল উন্নয়ন চাইলে অবশ্যই কর জিডিপির অনুপাত বাড়াতে হবে। আর এজন্য করযোগ্য সবাইকে কর দিতে হবে।

করসেবায় গত ১৪ থেকে ২০ নভেম্বর আয়কর মেলা আয়োজন করেছিল এনবিআর। মেলায় মোট দুই হাজার ৬১৩ কোটি ৪৬ লাখ ৮৫ হাজার ৬৬৭টাকা কর আদায় হয়। যা গত বছরের তুলনায় প্রায় ১৪৫ কোটি টাকা বেশি ছিল।

২০১৮ সালে মেলায় কর আদায় হয়েছিল দুই হাজার ৪৬৮ কোটি ৯৪ লাখ ৪০ হাজার ৮৯৫ টাকা। দশমবারের মতো আয়োজিত আয়কর মেলা থেকে সেবা গ্রহণ করে ১৮ লাখ ৬৩ হাজার ৩৮৬ জন করদাতা। আর রিটার্ন দাখিল করে ৬ লাখ ৫৫হাজার ৯৫ এবং নতুন ই-টিন নিবন্ধন নিয়েছেন ৩২ হাজার ৯৬১ জন করদাতা।

 

বিজনেস বাংলাদেশ/এম মিজান

ধনী-গরিব বৈষম্য বাড়ছে
০৫ অক্টোবর ২০১৭ 140296 বার

বিকাশে কেনা যাবে বিমান টিকেট
১২ অক্টোবর ২০১৭ 91358 বার