আজ সোমবার | ২১ অক্টোবর, ২০১৯ ইং
| ৬ কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ২০ সফর, ১৪৪১ হিজরী | সময় : রাত ১:১১

মেনু

রায়পুরে পানচাষে ব্যাপক সম্ভাবনা

রায়পুরে পানচাষে ব্যাপক সম্ভাবনা

নিজস্ব প্রতিবেদক
রবিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯
৯:৩১ অপরাহ্ণ
19 বার

সঠিক দিক-নির্দেশনার অভাবে জেলার রায়পুুর ক্যাস্পের হাটের পানচাষিরা বিপাকে রয়েছেন। অথচ সামান্য সহযোগিতা পেলে ক্যাম্পেরহাটে পাওয়া যাবে টাকার খনি। তথ্যমতে, রায়পুর উপজেলায় বছরে পানে প্রায় ৬০ কোটি টাকার লেনদেন হয়। এ পান জেলার চাহিদা মিটিয়ে ঢাকা, কুমিল্লা, ফেনী ও নোয়াখালীসহ বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ হচ্ছে।

এ অঞ্চলে বাণিজ্যিকভাবে পান চাষ হলে খুলে যেতে পারে অর্থনৈতিক উন্নয়নের দ্বার। প্রতি সপ্তাহে পাঁচ দিন (শনিবার, রোববার, বুধবার, বৃহস্পতিবার এবং শুক্রবার) লক্ষ্মীপুরের সবচেয়ে বড় পানবাজার হায়দরগঞ্জ, ক্যাম্পেরহাট ও রায়পুর বাজার এলাকায় বসে। এ ছাড়াও বিভিন্ন জেলা থেকে আসা পানচাষি/ব্যবসায়ীরা আগের রাত থেকে হায়দরগঞ্জ বাজার, ক্যাম্পেরহাট বাজার ও রায়পুরে আসতে থাকেন। বিভিন্ন বাজারে গিয়ে তারা পান সংগ্রহ করে থাকেন।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, রায়পুরে ৪৮০ হেক্টর জমিতে পান চাষ হয়। উৎপাদন খরচ হয় প্রায় আড়াই লাখ টাকা। বর্তমান বাজারে ভালো মানের প্রতি বিড়া পান বিক্রি হয় ২২০-২৫০ টাকায়। এ হিসেবে রায়পুরে প্রায় ৪৫ কোটি টাকার পান উৎপাদন হয়। তবে বেসরকারি হিসেবে পানের উৎপাদন হয় প্রায় ৫৫ থেকে ৬০ কোটি টাকার। উপজেলার উত্তর চর আবাবিল, দক্ষিণ চর আবাবিল, উত্তর চরবংশী ও দক্ষিণ চরবংশী ইউনিয়নে পানের আবাদ বেশি হয়। পানপল্লী খ্যাত ক্যাম্পেরহাট এলাকার পানচাষিরা জানান, বৈশাখ থেকে অগ্রহায়ন মাস পর্যন্ত পানের উৎপাদন ভালো হয়। এ সময় উৎপাদিত পানের আকারও হয় বড়।

কিন্তু অতি শীত, ঘন কুয়াশা এবং ক্ষেতে পানি জমে থাকলে পানের বরজ নষ্ট হয়ে যায়। যদি কোনো প্রাকৃতিক কারণে পানের বরজ নষ্ট না হয়; তাহলে একটি বরজ ১০ থেকে ২৫ বছর পর্যন্ত স্থায়ী হয়।

 

 

বিজনেস বাংলাদেশ/শ

ধনী-গরিব বৈষম্য বাড়ছে
০৫ অক্টোবর ২০১৭ 121295 বার

বিকাশে কেনা যাবে বিমান টিকেট
১২ অক্টোবর ২০১৭ 77474 বার