আজ সোমবার | ২০ মে, ২০১৯ ইং
| ৬ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৪ রমযান, ১৪৪০ হিজরী | সময় : দুপুর ১:১২

মেনু

দেশের সবচেয়ে বড় বিপদ প্রধানমন্ত্রী মোদি: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

দেশের সবচেয়ে বড় বিপদ প্রধানমন্ত্রী মোদি: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
মঙ্গলবার, ১৪ মে ২০১৯
১:৪২ অপরাহ্ণ
49 বার

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দেশের সবচেয়ে বড় বিপদ বলে মন্তব্য করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মমতার অভিযোগ, রাজ্যে দাঙ্গা লাগিয়ে রাজনৈতিকভাবে লাভবান হওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে বিজেপি। কিন্তু সে চেষ্টা সফল হবে না।

পশ্চিমবঙ্গের মেটিয়াবুরুজে এক সভায় মুখ্যমন্ত্রী বলেন, আমি মরে গেলেও কাউকে রাজ্যে একটা দাঙ্গাও করতে দেব না। তার অভিযোগ ডায়মন্ড হারবার লোকসভা কেন্দ্রের নির্বাচনে জিততে দাঙ্গা করার পরিকল্পনা করছে বিজেপি।

মমতা বলেন, মোদি ডায়মন্ড হারবারে দাঙ্গা লাগাতে চান। তিনি দেশের সবচেয়ে বড় বিপদ। মোদি আবার ক্ষমতায় এলে দেশের কী হবে? বাংলা এমন একটা জায়গা যেখানে সমস্ত ধর্ম একসঙ্গে মিলেমিশে থাকে। আমি আমার জীবন দিয়ে দেব কিন্তু বাংলায় দাঙ্গা করতে দেব না।

তিনি বলেন, লোকজন ভাবে আমি মুসলমানদের আলাদা সুবিধা দিচ্ছি। সেটা কেন মনে করে? মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষরাও এই রাজ্যের অংশ। কেন এটাকে নিয়ে নোংরা রাজনীতি করছে বিজেপি?

ওয়াজিদ আলি শাহর স্মৃতি বিজড়িত মেটিয়াবুরুজে সভা থেকে তিনি আরও বলেন, শুধুমাত্র তার পরিবারের সদস্য বলেই অভিষেককে বন্দ্যোপাধ্যায়কেও আক্রমণ করা হচ্ছে। তার নামে নানা রকম অসত্য প্রচার করা হচ্ছে। মেটিয়াবুরুজের পর উত্তর চব্বিশ পরগনার বিড়লাপুরে সভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, দেশের গণতন্ত্রকে বাঁচাতে মোদিকে ক্ষমতাচ্যুত করতে হবে।

আমি বার বার রাজ্যের সমস্ত আসনে জিততে চেয়েছি। তার একটাই কারণ, যাতে নতুন সরকার তৈরি হওয়ার ক্ষেত্রে বাংলা নিজের বক্তব্য স্পষ্টভাবে তুলে ধরতে পারে। এই সভা সমাপ্ত হওয়ার পর নামখানাতেও সভা করেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখান থেকে তিনি বলেন গত পাঁচ বছরে দেশের জন্য কোনও কাজ করেননি প্রধানমন্ত্রী।

এবারও যদি চৌকিদারকে দায়িত্ব দেওয়া হয় তাহলে নিজেদের ধ্বংস করা হবে। ওর দলকে একটা ভোটও না দিয়েই জবাব দিতে পারবে মানুষ। মমতার দাবি ভোট পেতে সমস্ত রকম কাজ করতে পারে বিজেপি। নামতে পারে যে কোনও স্তরে।

বিবি/জেজে

রোহিঙ্গা নিধন
০১ অক্টোবর ২০১৭ 103737 বার

সুন্দরীর মুকুট হারালেন
০৪ অক্টোবর ২০১৭ 103658 বার

মলিকিউল গবেষণায় রসায়নের নোবেল
০৪ অক্টোবর ২০১৭ 103618 বার