ঢাকা রাত ১১:৩৬, শনিবার, ২৫শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং, ১১ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

দুই দিনের বিডিএফ বৈঠক কমিয়ে একদিন

বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ফোরামের (বিডিএফ) পূর্ব নির্ধারিত দুই দিনের বৈঠক কমিয়ে একদিনে আনা হয়েছে। আগামী ২৯ জানুয়ারি এ বৈঠক ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে ২৯ এবং ৩০ জানুয়ারি এই দুইদিন বিডিএফ বৈঠক অনুষ্ঠানের সব প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছিল অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (ইআরডি)। কিন্তু, ৩০ জানুয়ারি ঢাকায় দুই সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের তারিখ চূড়ান্ত হওয়ায় সরকার দু’দিনের এই বৈঠক কমিয়ে একদিনে করার নতুন সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

ইআরডি সচিব মনোয়ার আহমেদ মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, বেশ কিছু জটিলতা কাটিয়ে ২৯ ও ৩০ নভেম্বর বুধ ও বৃহস্পতিবার এই দুই দিন বিডিএফ বৈঠকের জন্য চূড়ান্ত করেছিল ইআরডি। সেভাবেই চলছিল সব আয়োজন। কিন্তু, এরইমধ্যে আগামী ৩০ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার ঢাকায় দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। এরপরেই বিডিএফ সম্মেলনের তারিখ নিয়ে শুরু হয় নতুন জটিলতা।

সূত্র জানায়, ৩০ জানুয়ারি নির্বাচন অনুষ্ঠানের দিন কিভাবে এ ধরনের একটি আন্তর্জাতিক পর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে তা নিয়ে ইআরডি’র শীর্ষ পর্যায়েই ছিল উদ্বেগ। আবার নতুন করে তারিখ নির্ধারণ করা এবং সেই তারিখে প্রধানমন্ত্রীর সম্মতি মেলানো খুবই কঠিন বলে মনে করে ইআরডি।

এমন পরিস্থিতিতে স্বরস্বতী পূজার দিন ৩০ জানুয়ারি নির্বাচন পেছানোর আর্জি নিয়ে উচ্চ আদালতে রিট করে হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ। তখন ইআরডি সিদ্ধান্ত নেয় যদি নির্বাচন পেছায় তাহলে তারিখ ঠিক থাকবে, আর যদি নির্বাচন না পেছায় তাহলে নতুন তারিখ নয়, দুই দিনের বদলে একদিন-২৯ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে এ বৈঠক। অবশেষে মঙ্গলবার উচ্চ আদালত রিট খারিজ করে দিলে ২৯ জানুয়ারি একদিনের বৈঠকের সিদ্ধান্ত নেয় ইআরডি। এমন সিদ্ধান্তের কথা বাংলা ট্রিবিউনকে নিশ্চিত করেন ইআরডি সচিব মনোয়ার আহমেদ।

জানতে চাইলে মনোয়ার আহমেদ জানায়, যেহেতু আদালত ৩০ জানুয়ারি ঢাকা সিটি করপোরেশনের তারিখ ঠিক রেখেছেন, সেহেতু বিডিএফ বৈঠক দুদিন নয়, একদিনই অনুষ্ঠিত হবে। কিছু করার নাই। তারিখ পরিবর্তন সম্ভব নয়। আমাদের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন।

ইআরডি সূত্র জানায়, রাজধানীর শেরেবাংলা নগরস্থ বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ফোরাম (বিডিএফ) ২০২০। এই আয়োজনে প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন পাওয়া গেছে। এবারের বৈঠকেই উন্নয়ন সহযোগীদের বিনিয়োগে আকৃষ্ট করতে দেশের ৮ম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনার ওপর প্রবন্ধ উপস্থাপন করা হবে। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

বিডিএফ বৈঠক ধারাবাহিকভাবেই প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করে আসছেন। এবারের বৈঠকটিও প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন ইআরডি সচিব মনোয়ার আহমেদ। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিষয়গুলোকে এগিয়ে নিতে অংশীদারিত্ব বজায় রাখার বিষয়ে আলোচনা করতে গবেষক, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, সরকারি নীতিনির্ধারক এবং সহযোগী উন্নয়ন সংস্থাগুলোর নেতারা এই বৈঠকে উপস্থিত থাকবেন বলে জানিয়েছে ইআরডি সূত্র।

এ প্রসঙ্গে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান জানিয়েছেন, বিডিএফ বৈঠকগুলোর মূল লক্ষ্য অতীতের মতো শুধুই সহায়তা পাওয়া নয়, এখন এ ধরনের বৈঠকে উন্নয়ন সহযোগী দেশ ও সংস্থার প্রতিনিধিরা আগ্রহের সঙ্গে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সফলতা অর্জনের গল্প শুনতে আসেন। তারা বাংলাদেশের এই সফলতার অংশীদার হতে চান, সেই আগ্রহ ব্যক্ত করতে আসেন।

তবে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ড. এবি মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম জানিয়েছেন, বিডিএফ মিটিংগুলো এখন আর আগের মতো আকর্ষণ করে না। কারণ আগের তুলনায় বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি বেড়েছে। সাহায্য নির্ভরতা কমেছে। তাই বাংলাদেশের প্রতি উন্নয়ন সহযোগী দেশ ও সংস্থাগুলোর পক্ষে আগের মনোভাব এখন আর কাজ করে না।

বিজনেস বাংলাদেশ/বিএইচ

এ বিভাগের আরও সংবাদ