আজ রবিবার | ১৮ আগস্ট, ২০১৯ ইং
| ৩ ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৬ জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী | সময় : সকাল ১১:০৫

মেনু

ডিএনসিসিতে দুদকের অভিযান!

ডিএনসিসিতে দুদকের অভিযান!

নিজস্ব প্রতিবেদক
রবিবার, ০৪ আগস্ট ২০১৯
৯:০৫ অপরাহ্ণ
22 বার

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে (ডিএনসিসি) অভিযান চালিয়ে মশক নিধনের ওষুধ ক্রয়ের চার বছরের তথ্য সংগ্রহ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

রোববার (০৪ আগস্ট) এই অভিযান পরিচালনা করে দুদকের এনফোর্সমেন্ট টিম। সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত এ অভিযান পরিচালিত হয় বলে দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা ও উপ-পরিচালক প্রণব কুমার ভট্টাচার্য বাংলানিউজকে নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, মশক নিধনের ওষুধ আমদানি ও ব্যবহারে ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে অভিযান পরিচালনা করেছে দুদক।

তিনি আরো বলেন, দেশব্যাপী ভয়াবহ আকারে ছড়িয়ে পড়েছে এডিস মশা তথা ডেঙ্গুজ্বরের প্রাদুর্ভাব। এমন প্রেক্ষাপটে দুদক অভিযোগ কেন্দ্রে (হটলাইন-১০৬) অভিযোগ আসে যে, সিটি করপোরেশনের একটি সংঘবদ্ধ চক্র মশক নিধনের ওষুধ আমদানিতে সিন্ডিকেট করে এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে অকার্যকর ওষুধ আমদানি করেছে।

এরই প্রেক্ষাপটে দুদক প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. রাশেদুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি এনফোর্সমেন্ট টিম অভিযান পরিচালনা করে।

জানা যায়, বিগত বছরগুলোতে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট কেবলমাত্র কিউলেক্স মশা নিধনের পরীক্ষা সম্পন্ন করে কীটনাশক পরীক্ষার ফলাফল গ্রহণ করে ওষুধ আমদানি করা হয়েছে। দুদক টিম ২০১৯-২০ অর্থবছরে মশা নিধনের ওষুধ ক্রয়ের জন্য এডিস মশার ওপর পরীক্ষা সম্পন্ন করার জন্য পরামর্শ দেয়।

এদিকে ক্রয় প্রক্রিয়া অনুসন্ধানে দুদক টিম দেখতে পায়, গত চার বছর ধরে ‘দি লিমিট অ্যাগ্রো প্রোডাক্টস লিমিটেড’ নামক প্রতিষ্ঠান থেকেই এককভাবে ইনসেক্টিসাইড সরবরাহ করা হয়েছিল। জানুয়ারি ২০১৯-এ ‘নিকোন লিমিটেড’ নামক প্রতিষ্ঠানকে ওষুধ বিক্রির কার্যাদেশ দেওয়া হয়।

দুদক টিম ২০১৫-২০১৯ সালের কার্যাদেশ দেওয়া সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য সংগ্রহ করে এবং এ ক্রয় প্রক্রিয়ায় কোনো দুর্নীতি হয়েছে কিনা, তা বিশ্লেষণ করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য কমিশনে প্রতিবেদন উপস্থাপন করবে।
বিবি/কেএইচ/

রাজধানীতে ২ ডাকাত আটক
১১ নভেম্বর ২০১৭ 48391 বার