আজ বুধবার | ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং
| ৩ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৮ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরী | সময় : সকাল ১১:১৪

মেনু

ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় ঝলসে গেল কণ্ঠশিল্পী শান্তার সমস্ত শরীর!

ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় ঝলসে গেল কণ্ঠশিল্পী শান্তার সমস্ত শরীর!

বাবুল হৃদয়
বুধবার, ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯
১০:০৫ অপরাহ্ণ
2852 বার

ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় ঝলসে গেল আলোচিত কণ্ঠশিল্পী ও কুমিল্লা ভিক্টরিয়া কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান ৩য় বর্ষের মেধাবী ছাত্রী সোনিয়া সাহা শান্তার সমন্ত শরীর। তার একটি চোখেও ডিফেক্ট দেখা দিয়েছে। ঝলসে গেছে তার সুন্দর মুখখানাও । দীর্ঘ ২২ দিন ধরে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ার পর মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) শান্তা বাসায় ফিরেছেন।

এখন বেদনায় কাতরাচ্ছেন বিছানায়। বিষয়টি বিজনেস নিউজকে জানিয়েছেন আলোচিত সঙ্গীত শিল্পী ও মাটি এন্টারটেইনমেন্টের কর্ণধার মিরাজ খান। শান্তা মাটি এন্টারটেইনমেন্ট-এর ব্যানারে বিভিন্ন স্টেজ শো করেছেন।

মিরাজ খান বলেন, শান্তা মেধাবী শুধু ছাত্রী নয়, চমৎকার একজন কণ্ঠশিল্পীও। যে ডাক্তারের ভুল চিকিৎসার কারণে শান্তা আজ মৃত্যুপথ যাত্রী তাকে বিচারের কাঠগড়ায় আনা উচিত।

ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে সন্ধ্যায় বিজনেস বাংলাদেশকে শান্তার বড় বোন মুক্তা সাহা মুঠোফোনে বলেন, ১৯ আগষ্টের ঘটনা। শান্তা জ্বর ও মুখে ঘা নিয়ে একজন ডাক্তারের শরণাপন্ন হোন। সে ভেবেছিল তার ডেঙ্গু জ্বর হয়েছে। সকালবেলা ওই ডাক্তার দেখতে এসেছে ওকে কোন টেস্ট ছাড়াই বেলা ১১টায় একটি এন্টিবায়োটিক ইনজেকশন (meropenem injection) দেয়া হয় তার শরীরে। শুরু হয় রেশ ওঠা । শান্তা ভয় পেয়ে ডিউটি ডাক্তারকে জানায়। রোগী অবস্থা খারাপ দেখে ডিউটি ডাক্তার আরেক ডাক্তার রেজাউল করিম -এর সাথে কথা বলে পরবর্তীতে আরও একটি ইনজেকশন ( avil injection) দেয়া হয়।

ওই ইনজেকশন দেয়ার পরে তার শরীরের রেশ কিছুটা কমে আসে, তারপর ওই দিন রাত১১ টায় ড. রেজাউল করিম ডিউটি ডাক্তারকে কল করে বলে আরেকটি ইনজেকশন পুশ করার জন্য ( Megacilin injection )

তারপরে রাত দুইটা থেকে তার পুরো শরীরে ফোসকা পড়ে যায় যেমন একটা মানুষকে আগুনে পুড়ে যাওয়া মানুষের মত। অবস্থার অবনতি দেখে কুমিল্লা মেডিকেল এর ডাক্তার ফ্যামিলিকে পরামর্শ দেন ঢাকায় একজন ভালো স্কিন ডাক্তার দেখানোর জন্য। সরাসরি তাকে নিয়ে আসা হয় ঢাকা ধানমন্ডি ইবনে সিনা হাসপাতালে। একদিন এই হাসপাতালে রাখার পর ওখান থেকেও পরামর্শ দেন রোগীকে বাঁচাতে চাইলে আরো অত্যাধুনিক হাসপাতালে নিয়ে যেতে হবে।তাদের পরামর্শ অনুযায়ী স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয় শান্তাকে।

দীর্ঘ ২২ দিন ধরে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ার পর ১০ সেপ্টেম্বর শান্তাকে বাড়িতে নিয়ে আসা হয়। শান্তা এখনো আশঙ্কামুক্ত নয়। শুধু ডাক্তারের ভুলের কারণে অকালেই ঝড়ে যেতে বসেছে মেধাবী এই ছাত্রীর জীবন।

মুক্তা সাহা আরও বলেন, একজন বেখেয়ালি ডাক্তারের কারণে যদি একজন রোগীর জীবনে বিপর্যয় নেমে আসে তাহলে অসহায় মানুষ কার কাছে যাবে ? আমরা সবার কাছে শান্তার জন্য দোয়া চাই , সে যেন আগের মত আমাদের মাঝে ফিরে আসতে পারে ।

এদিকে এই ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন পরিবারসহ সহপাঠি ও শিল্পী সমাজ। তারা চিকিৎসকের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি চান।

বিজনেস বাংলাদেশ-বি/এইচ

রবিবারেই থেমে যাবে বৃষ্টি
২১ অক্টোবর ২০১৭ 541961 বার

সুষমা স্বরাজ ঢাকায়
২২ অক্টোবর ২০১৭ 540160 বার

কাঁদলেন মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ
০৪ অক্টোবর ২০১৭ 457094 বার