ঢাকা রাত ২:০৯, বুধবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং, ৬ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

কীভাবে বলব-ভালোবাসি

প্রেমিক যুগলদের জন্য পরম কাঙ্খিত দিন-বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। প্রতি বছর ১৪ ফেব্রুয়ারি দিনটি উদযাপন করা হয়। পর্দায় নাটক বা সিনেমায় শিল্পীদের প্রেমে পরতে দেখা যায়। বাস্তব জীবনেও তারা প্রেমে পরেন। কেউ প্রেম সাগরে ভালোবাসার নৌকায় পাল তুলতে না তুলতেই বিরহে ভেসে যান।

আবার অনেকের জীবনে ভালোবাসার নৌকা তরতর করে এগিয়ে যায়। খুঁজে পায় গন্তব্য। প্রেমের গন্তব্য বা পরিণতি হলো বিয়ে। চিত্রনায়ক সিয়াম রয়েছেন শেষ দলে। দীর্ঘ আট বছর প্রেম করে ভালোবাসার মানুষকে নিয়ে তার সুখের সংসার।

সিয়ামের ফেইসবুক ফ্রেন্ড অনেকেই। তবে এর মধ্যে একজন স্পেশাল। সিয়ামের কাজ নিয়মিত ফলো করেন তিনি। ইনবক্সে দুজনের আলাপ হয়। একসময় মেয়েটির মনে ভালোবাসা উঁকি দেয়। দুজন নির্দিষ্ট দিনে দেখা করে। আলাপ হয়। আলাপ থেকে ধীরে ধীরে ঘনিষ্ঠতা। কিন্তু সে তো শুধুই বন্ধুত্ব।

অথচ দুজনেরই মন বলছে ভিন্ন কথা। সম্পর্ক ততদিনে বাঁক বদল করেছে। কিন্তু কেউ বুঝতে পারছিলেন না কীভাবে বলবেন-ভালোবাসি। সুযোগ বুঝে সিয়াম একদিন বলে ফেললেন মনের কথা। এরপরেই জমে উঠল দুজনের প্রেম। হলো সিয়াম-অবন্তীর প্রেমের শুরু।

ভালোবাসা দিবস প্রসঙ্গে সিয়াম বলেন, ‘আমি মনে করি প্রতিটি দিনই ভালোবাসা দিবস। আমরা পরস্পরকে অনেকদিন ধরে জানি। বোঝাপড়াও ভীষণ ভালো। এই দিনে বলব-সবাই দোয়া করবেন যেন আমরা ভালো থাকতে পারি।’

প্রেম তো হলো, বিয়েটা কীভাবে? এজন্য অবশ্য যথেষ্ট বেগ পেতে হয়েছে। সিয়াম বলেন, ‘মিডিয়ায় কাজ করি বলে অবন্তীর পরিবার শুরুতে মেনে নিতে চায়নি। নানা মানুষের নানা মত সামাল দিতে হয়েছে। তবে অবন্তী সিদ্ধান্তে অটল ছিল। তার শক্ত অবস্থানের কারণে আমাদের প্রেম বিয়েতে গড়ায়। পরিবারের আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধবের উপস্থিতিতে আমাদের বিয়ে হয়েছে।’

স্ত্রী শাম্মা রুশফি অবন্তী সম্পর্কে সিয়াম বলেন, ‘আমি মনে করি একজন মানুষের সফলতার পেছনে জীবনসঙ্গীর ভূমিকা রয়েছে। আমার জীবনে অবন্তীর অনেক অবদান।

বিজনেস বাংলাদেশ/এম মিজান

এ বিভাগের আরও সংবাদ