ঢাকা বিকাল ৩:৩৫, সোমবার, ৩০শে মার্চ, ২০২০ ইং, ১৬ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

করোনাও একটি সাধারণ `ফ্লু’

মেডিটেশন ও মন নিয়ন্ত্রণের জনপ্রিয় পদ্ধতি কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে এই ই-মেইল বার্তায় করোনা প্রতিরোধে সবাইকে সচেতন হবার আহ্বান জানানো হয়েছে। একই সঙ্গে তারা এটিকে সাধারণ ফ্লু হিসেবেও আখ্যায়িত করেছে। তাদের মতে, এতে আক্রান্ত হলেও ভয়ের কিছু নেই শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার সঙ্গে এটি টিকে উঠবেনা।

পাঠকদের জন্য কোয়ান্টামের বাণী তুলে ধরা হলো:

কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের যুক্তি, সাধারণ ফ্লুতে আমেরিকাতে প্রতি বছর আক্রান্ত হয় ৩ কোটিরও বেশি মানুষ। যা এ বছর করোনায় আক্রান্তের ২০০০ গুণেরও বেশি।

বাস্তব সত্য হচ্ছে, করোনাভাইরাসে যারা আক্রান্ত হন, তাদের ৮১ শতাংশ মাইল্ড অসুস্থ হন। যেটার জন্যে হাসপাতালে যাওয়ারও কোনো প্রয়োজন হয় না! ১৪ শতাংশ অসুস্থ হন, তাদেরকে হাসপাতালে নিতে হয়। তাহলে যেই রোগের ৮১ শতাংশের জন্যে হাসপাতালেও নেয়ার প্রয়োজন হয় না; মাইল্ড, সেটাকে সর্দি-কাশি-জ্বর মানে ফ্লু ছাড়া আর কী বলা যায়!

তবে কোয়ারেন্টাইনে থাকার সুযোগ সবারই গ্রহণ করা উচিত। কোয়ারেন্টাইনটা আশীর্বাদ হিসেবে গণ্য করা উচিত জীবনের জন্যে। কারণ মানুষ আসলে খুব কম সময় পায়, সুযোগ পায় এইরকম নির্জন থাকার। একা থাকার।

প্রতি বছর ইনফ্লুয়েঞ্জায় মারা যায় এর চেয়ে বেশি মানুষ! আসলে আমরা যেটাকে জ্বর-সর্দি-কাশি বলি, ইউরোপ আমেরিকাতে এটাকেই ফ্লু বলা হয়। নভেম্বর-ডিসেম্বর থেকে জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি, শীতকালের রোগ।

আমরা তুলনা করলেই কিন্তু বুঝতে পারি যে ফ্লু-তেও করোনার চেয়ে প্রত্যেক বছর কত বেশি পরিমাণে মারা যায়!

করোনাও একটি সাধারণ ফ্লু

সাধারণ ফ্লু-তে আমেরিকাতে প্রতি বছর আক্রান্ত হয় ৩ কোটিরও বেশি মানুষ- যা এ বছর করোনায় আক্রান্তের ২০০০ গুণেরও বেশি।

সাধারণ ফ্লু-তে মৃত্যু

করোনার তুলনায় শতগুণ। প্রতি বছর আমেরিকায় ফ্লু-তে মৃত্যু ৩০ হাজারের বেশি। করোনায় এ বছর মৃত্যু ২৫৮ আর হাসপাতালে ভর্তি ৩ হাজার।

সোয়াইন ফ্লু-তে মৃত্যু

করোনার তুলনায় ৯ গুণ। গত ৩ বছরে ভারতে সোয়াইন ফ্লু-তে মৃত্যু হাজারের বেশি। গত ২ মাসে মৃত্যু ২৮ যা করোনার ৯ গুণ আর আক্রান্ত ৭ গুণ।

তাই করোনাভাইরাসে আতঙ্কিত না হয় শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ান।

বিজনেস বাংলাদেশ/ মেহেদী

এ বিভাগের আরও সংবাদ