আজ শুক্রবার | ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং
| ৫ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৯ মুহাররম, ১৪৪১ হিজরী | সময় : রাত ৪:৫৫

মেনু

উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

ঢাবি প্রতিনিধি
বুধবার, ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯
৬:০৪ অপরাহ্ণ
27 বার

ভর্তি জালিয়াতিতে জড়িত থাকায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আখতারুজ্জামান ও ব্যবসায় অনুষদের অনুষদের ডিন শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম এবং নিয়োগ বাণিজ্যে জড়িত থাকায় রোকেয়া হলের প্রভোস্ট জিনাত হুদার পদত্যাগ সহ চার দফা দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে বামপন্থী ছাত্র সংগঠনগুলো।

বুধবার (১১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালযয়ের টিএসসির সঞ্জীব চত্বরে এ সংবাদ সম্মেলন করে বামপন্থী ছাত্র সংগঠনগুলো। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন ঢাবি শাখার সভাপতি রাগীব নাঈম।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ডাকসু নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর ছাত্রত্ব টিকিয়ে রাখতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্যের দেয়া ‘চিরকুটের’ মাধ্যমে ছাত্রলীগের ৩৪ নেতা ‘অবৈধভাবে’ ভর্তি করিয়েছিল শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম। যা শিক্ষকদের অবস্থান কে পরিষ্কার করে দিয়েছে। যাদের মধ্যে আটজন পরবর্তীতে ডাকসুর বিভিন্ন পদে জয়লাভ করেন। আর শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম হয়েছিলেন ডাকসুর কোষাধ্যক্ষ। ২০০৯ সাল থেকে তার বিরুদ্ধে ঋণ খেলাপির মামলা চলছে। জানিনা তার হাত ধরেই আর কত জায়গায় এরকম দুর্নীতি প্রশ্রয় পাচ্ছে।

রোকেয়া হলের নিয়োগ বাণিজ্যের কথা উল্লেখ করে তিনি লিখিত বক্তব্যে আরো বলেন, রোকেয়া হলের নিয়োগ বাণিজ্যের খবর সামনে আসায় আমরা এ সম্পর্কে জানতে পেরেছি। এমন আরো অনেক ঘটনা আছে যা আমরা জানি না। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন হলের ক্যান্টিন বন্ধ হয়ে যাওয়া কিংবা নির্বিঘ্নে ঢাবি ক্যাম্পাসে মেট্রোরেলের কাজ চলার পেছনে কাদের পকেটে ভারি হয়েছিল তা এখন খতিয়ে দেখার সময় এসেছে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সালমান সিদ্দিকী, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনে সাধারণ সম্পাদক সালমান ফরাজী, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন ঢাবি শাখার সভাপতি রাকিব নাইম, শ্রবণা শফিক দীপ্তি ও মীম আরাফাত মানব প্রমুখ।

তাদের উত্থাপিত চার দফা হলো;
১. দুর্নীতিতে জড়িত থাকায় রোকে হলের প্রভোস্ট জিনাত হুদা, এবং ভর্তি জালিয়াতিতে জড়িত থাকায় উপাচার্য আখতারুজ্জামান ও ব্যবসায় অনুষদের ডিন শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম কে পদত্যাগ করতে হবে।

২. জালিয়াতির মাধ্যমে ভর্তি হওয়া আট আসনে তাকে পদত্যাগ করতে হবে। (এই আটজন হলেন, কেন্দ্রীয় সংসদের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আরিফ ইবনে আলী, স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক কাদের চৌধুরী ও ক্রীড়া সম্পাদক শাকিল আহমেদ তানভীর। সদস্য নজরুল ইসলাম, সদস্য মুহা. মাহমুদুল হাসান, সদস্যের নিপু ইসলাম, সদস্য রকিবুল হাসান ও এফ রহমান হলের সহ-সভাপতি আব্দুল আলিম খান)

৩. রোকেয়া হল এর নিয়োগ বাণিজ্যে জড়িত থাকায় হল সংসদের ভিপি ইসরাত জাহান তন্বী ও সায়মা আক্তার প্রমিকে পদত্যাগ করতে হবে।

৪. ২ ও ৩ নং দাবিতে উল্লেখিত ১০ শিক্ষার্থী, অর্থাৎ যারা নিয়োগ-বাণিজ্যে জড়িত ছিলো কিংবা জালিয়াতির মাধ্যমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছিল তাদের প্রত্যেকের ছাত্রত্ব বাতিল করতে হবে।

বিজনেস বাংলাদেশ-বি/এইচ

রবিবারেই থেমে যাবে বৃষ্টি
২১ অক্টোবর ২০১৭ 546643 বার

সুষমা স্বরাজ ঢাকায়
২২ অক্টোবর ২০১৭ 544842 বার

কাঁদলেন মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ
০৪ অক্টোবর ২০১৭ 461018 বার