আজ শনিবার | ৭ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং
| ২২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ৯ রবিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী | সময় : বিকাল ৩:৩৭

মেনু

আমাদের কার্যক্রমের উপর আস্থা রেখেই বলছি পূর্ণ প্যানেল বিজয়ী হব: জায়েদ খান

আমাদের কার্যক্রমের উপর আস্থা রেখেই বলছি পূর্ণ প্যানেল বিজয়ী হব: জায়েদ খান

বাবুল হৃদয়
বৃহস্পতিবার, ১০ অক্টোবর ২০১৯
৫:৩৯ পিএম
303 বার

আগামী ২৫ অক্টোবর বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এই নির্বাচনকে ঘিরে এফডিসিতে উৎসবের আমেজ। পাশাপাশি নির্বাচনকে ঘিরে আলোচনা- সমালোচনারও শেষ নেই। আলোচিত এই নির্বাচনে মিশা-জায়েদ পুর্নাঙ্গ প্যানেল নিয়ে নির্বাচন করছেন। সমসাময়ীক বিষয় ও নির্বাচন নিয়ে বিজনেস বাংলাদেশের মুখোমুখি হয়েছেন শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও আলোচিত নায়ক জায়েদ খান। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন বাবুল হৃদয়।

বিজনেস বাংলাদেশ: আপনি বলেছেন আমাদের কার্যক্রমের উপর আস্থা রেখেই শিল্পীরা আমাদের পূর্ণ প্যালেন বিজয়ী করবে। আপনাদের দায়ীত্বকালে কোন কোন উল্লেখযোগ্য উন্নয়ন হয়েছে ?

জায়েদ খান : আমরা দায়ীত্ব গ্রহন করি ২০১৭ সালে। এই দুই বছরে নজিরবিহীন উন্নয়ন হয়েছে শিল্পী সমিতির। আমরা অসুস্থ ও দুস্থ শিল্পীদের আর্থিক সহযোগিতা করেছি। আমাদের আন্দোলনের কারণে বিদেশি সিনেমা আনা বন্ধ হয়েছে। আপনারা দেখেছেন, আমাদের শিল্পী সমিতির বসার জায়গাটা কি বেহাল দশায় ছিল। আমার এর অবকাঠামো উন্নয়ন করেছি। আজ এখানে বসে সুন্দর পরিবেশে আড্ডা ও কফির ব্যবস্থা রয়েছে। এছাড়া আপনারা জানেন, প্রয়াত শিল্পীদের স্বরণে আমরা দোয়া মাহফিল করে শিল্পীদের স্বরণ করছি। ঈদে ৫টি গরু কেটে শিল্পীদের মাঝে বিতরণ করেছি। সবাই যাতে ভালোভাবে ঈদ করতে পারে এ জন্য অনেককে সেমাই, চিনি, কাপড়-চোপড় দিয়েছি। শিল্পীদের জন্য বিভিন্ন রকম ভাতা প্রদান করেছি। এফডিসিতে সু-বিশাল মসজিদ করছি, যেখানে আমাদের নারী শিল্পীরাও নামাজ আদায় করতে পারবেন। শিল্পীদের জন্য কিছু ফান্ড এখনো জমা আছে।

বিজনেস বাংলাদেশ: এতো উন্নয়নের পরেও আপনাদের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ। ১৮০ জন শিল্পীদের সদস্যপদ বাদ দেওয়া, কথা বলতে না দেওয়াসহ নানা অভিযোগ। এ বিষয়টি খোলা করে বলেন?

জায়েদ খান : এই অভিযোগ গুলো আগে কোথায় ছিল? নির্বাচনে বিরুদ্ধোচরণ করার জন্য আমাদের বিরুদ্ধে এখন সমালোচনা করা হচ্ছে। সংবিধান অনুযায়ী শিল্পীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে। কাউকে জোড় করে বাদ দেওয়া হয়নি। সমিতির নিয়ম অনুযায়ী সাক্ষাৎকার নেওয়া হয়েছে। যারা প্রমাণ দিতে পেরেছেন শিল্পী, তারা এখনো সমিতিরি সদস্য। এটা নিয়ে যারা সমালোচনা করছেন তারা নির্বাচিত হলে সংবিধান অনুযায়ী সদস্য নেওয়ার মতো যোগ্যতা থাকলে তারা নিবেন।

আর কথা বলতে দেওয়া হয়না যে অভিযোগের কথা বললেন, এটা মোটেও ঠিক না। নাম ধরে যদি বলি রিয়াজ, ফেরদৌস ভাইয়ের কথা, তারা ইসি মিটিংয়ে ছিলেন সে সময় কথা বলেননি কেন? শিল্পী সমিতির সকল সদস্যদের কথা বলার অগ্রাধীকার দেওয়া হয়েছে।

বিজনেস বাংলাদেশ: সভাপতি হিসেবে প্যানেলের বাইরে থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মৌসুমী নির্বাচন করছে কিভাবে মূল্যায়ন করছেন?

জায়েদ খান : অভিনেত্রী হিসেবে মৌসুমি ম্যাডামকে শ্রদ্ধা করি। নির্বাচনে কিছু ভোট পেলেও মিশা সওদাগরের সঙ্গে কুলিয়ে উঠতে পারবেন না। আর শিল্পীদের জন্য আগে কোন অবদান না রেখে হঠাৎ ভোটের আগে এসে ভোট চাইলেই ভোট দিবে? ভোট এতো সহজ! মৌসুমি এতোবড় স্টার একটা প্যানেলই করতে পারলেন না!

বিজনেস বাংলাদেশ: এবার জয়ের ব্যপারে আপনাদের প্রত্যশার কথা বলেন?

জায়েদ খান : ইনশাআল্লাহ, আমরা আমাদের কার্যক্রমের উপর আস্থা রেখেই বলতে পারি আমাদের পূর্ণ প্যালেন বিজয়ী হবে। আমাদের সঙ্গে প্রবীণ-নবীন শিল্পীরা রয়েছেন আমরা বিজয়ী হবোই।

বিজনেস বাংলাদেশ-বি/এইচ

কাঁদলেন মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ
০৪ অক্টোবর ২০১৭ 633076 বার

উষ্ণতা ছড়াচ্ছেন শাহরুখ কন্যা
০৫ অক্টোবর ২০১৭ 396979 বার